Home / আন্তর্জাতিক / লেবাননের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ

লেবাননের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ

লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হারিরি পদত্যাগের পর দেশটিতে সৃষ্ট রাজনৈতিক সংকটে তাদের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ।

যদিও সৌদি আরবের অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে লেবানন। তারপরও তাদের মিত্র যুক্তরাষ্ট্র লেবাননকে সমর্থন জানিয়েছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে প্রতিনিধিদের পাঠানো এক বার্তায় সৌদি আরব থেকে ভিন্ন সুরে কথা বলা হয়। ইইউ’র প্রতিনিধিরা জানায়, লেবাননের জনগণ ও গণতান্ত্রিক সরকার ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সর্বদা সমর্থন দে্বে ইউরোপ।

লেবাননে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতও বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র লেবাননের স্থিতিশীলতা বজায় রাখা ও গণতান্ত্রিক উন্নয়নে পাশে থাকবে। দেশটির সেনাপ্রধানের জেনারেল জোসেফ আউনের সঙ্গে কথা বলে এসব কথা জানিয়েছেন তিনি।

হারিরির সহসা পদত্যাগে রাজনৈতিক সংকটে পড়ে লেবানন। এ ঘটনায় সৌদি আরব ও তার আঞ্চলিক প্রতিপক্ষ ইরানের মধ্যকার রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে পড়েছে লেবানন। এ দ্বন্দ্বের মাঝে রয়েছে সিরিয়া, ইরাক, বাহরাইন ও ইয়েমেনও।

লেবাননি সেনাবাহিনীকে ৪ কোটি ২৯ লাখ ডলার সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী মনে করে যুক্তরাষ্ট্র।

গতকাল মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, লেবানন গুরুত্বপূর্ণ মার্কিন সহযোগী দেশ। দফতরের মুখপাত্র হেদার নরেট বলেন, ‘লেবাননের বৈধ সরকারকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র। আমরা চাই বিশ্বের সব আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সেই বৈধ ধারাকে সম্মান করুক।’ রয়টার্স।

About superadmin

Check Also

পরমাণু কেন্দ্র ধ্বংসের দাবি উঃ কোরিয়ার

সদিচ্ছার প্রমাণ হিসেবে পরমাণু পরীক্ষা কেন্দ্র ‘পুংগিয়ে-রি’ পুরোপুরি ধ্বংসের দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। ঘোষিত পরিকল্পনা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *