Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / গুলেনকে অপহরণের খবর পুরোই মিথ্যা, হাস্যকর ও ভিত্তিহীন: তুরস্ক

গুলেনকে অপহরণের খবর পুরোই মিথ্যা, হাস্যকর ও ভিত্তিহীন: তুরস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী তুর্কি ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনকে ‘অপহরণ করে’ তুরস্কে নিয়ে যাবার এক পরিকল্পনা হয়েছিলো বলে খবর বেরুনোর পর তুরস্ক তা অস্বীকার করেছে।

গত বছর জুলাই মাসে তুর্কি রাষ্ট্রপতি এরদোগানের বিরুদ্ধে যে অভ্যুত্থান হয়েছিলো, এর পেছনে ফেতুল্লাহ গুলেনের ভুমিকা ছিলো বলে আংকারার অভিযোগ।

এরদোয়ান একাধিকবার বিচারের জন্যে মি. গুলেনকে তুরস্কের হাতে তুলে দিতে আহ্বান জানিয়েছেন। মি. গুলেন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ায় বসবাস করেন।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক রিপোর্টে বলা হচ্ছে, রাষ্ট্রপতি ট্রাম্পের সাবেক নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিন এ রকম একটি পরিকল্পনা নিয়ে তুরস্কের কিছু কর্মকর্তার সঙ্গে আলোচনা করেছিলেন গত বছর সেপ্টেম্বরে। পরিকল্পনাটি ছিল, এ বছর মার্চে মি. গুলেনকে ধরে একটি ব্যক্তিগত বিমানে তুলে দেয়া হবে এবং তাকে তুরস্কের ইমরালি দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হবে – যেখানে একটি কারাগার রয়েছে।

এর বিনিময়ে মি. ফ্লিনকে ১ কোটি ৫০ লাখ ডলার দেবার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিলো – এ কথা প্রকাশ করেছেন সিআইএ’র সাবেক পরিচালক জেমস উলসি। তিনি বলেন, তিনি নিউইয়র্কের একটি হোটেলে এরকম এক বৈঠকে ছিলেন।

ওয়াশিংটনের তুর্কী দূতাবাস এ খবরকে ‘পুরোই মিথ্যা, হাস্যকর ও ভিত্তিহীন’ বলে বর্ণনা করে বলেছে, তুরস্ক ফেতুল্লাহ গুলেনকে বিচারের জন্যে ফেরত চায়; কিন্তু আইনবিরুদ্ধ কোনো পথে নয়।

মি. ফ্লিনের আইনজীবীও এ রকম দাবির কথা জোর দিয়ে অস্বীকার করেছেন। মি. ফ্লিন পরে রাশিয়া-সংশ্লিষ্টতার এক অভিযোগ ওঠার পর পদত্যাগ করেন।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল বলছে, মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বা্চনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

এনবিসি বলছে, মি. ফ্লিন যখন হোয়াইট হাউসে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ছিলেন, তখন তিনি ফেতুল্লাহ গুলেনকে তুরস্কে ফিরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন কিনা – এরও তদন্ত করা হচ্ছে। বিবিসি।

About superadmin

Check Also

ট্রাম্প কর বাড়ানোয় কী বললেন এরদোগান-পুতিন?

তুরস্কের দু’ পণ্যে শুল্ক বাড়িয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এখন থেকে তুরস্কের আমদানি করা অ্যালুমিনিয়াম ও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *