Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / রোহিঙ্গা ইস্যু বাংলাদেশ ও তুরস্ককে একে অপরের ঘনিষ্ঠ করেছে

রোহিঙ্গা ইস্যু বাংলাদেশ ও তুরস্ককে একে অপরের ঘনিষ্ঠ করেছে

রোহিঙ্গা সংকট বাংলাদেশ ও তুরস্কের মাঝের সম্পর্কের টানাপড়েন অবসান করে দু’দেশকে পরস্পরের কাছাকাছি নিয়ে এসেছে। সাম্প্রতিক ঘটনাবলী থেকে সেটাই দেখা যাচ্ছে।

তুরস্ক ও বাংলদেশ সরকারের মাঝে সব সময় এ ধরনের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিলো না। কিন্তু রোহিঙ্গা সংকট অবস্থা পাল্টে দিয়েছে। এ সপ্তাহের গোড়ার দিকে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম বাংলাদেশ সফর করেন। তিনি মিয়ানমার সামরিক বাহিনী কর্তৃক রোহিঙ্গা হত্যাকে গণহত্যা বলে বর্ণনা করেন। দু’দিনের সফরকালে তিনি তুর্কি সহযোগিতা ও সমন্বয় সংস্থার (টিকা) কিছু খাবার বিতরণে নিজে সহায়তা করেন। টিকা ২৫ হাজার রোহিঙ্গার খাবার জন্যে প্রতিদিন আড়াই টন খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছে। ইলদিরিম কক্সবাজারে বালুখালি উদ্বাস্তু শিবিরে একটি চিকিৎসা কেন্দ্র উদ্বোধন করেন। তুরস্ক স্থানীয় প্রশাসনকে দু’টি অ্যাম্বুলেন্সও দান করেছে। টিকা উদ্বাস্তুদের ১০ হাজার কম্বল দিয়েছে; সে সঙ্গে চিকিৎসা সুবিধা দিচ্ছে। বিভিন্ন শিবিরে শিশুদের জন্যে খেলার মাঠও তৈরি করে দিয়েছে তারা।

টিকা প্রথম বিদেশী সংস্থা – যারা ২রা সেপ্টেম্বর মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের সংঘর্ষ কবলিত অঞ্চলে প্রাথমিক পর্যায়ে এক হাজার টন খাদ্য ও ওষুধ প্রদান করে। আগস্ট মাসে রাখাইনে দমন অভিযান শুরুর পর মিয়ানমার সরকার সেখানে জাতিসংঘের সকল ত্রাণ কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। তুরস্কের বিপর্যয় ও জরুরি ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ (আফাদ) ও তুর্কি ধর্মীয় বিষয়ক অধিদফতরও বাংলাদেশের রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরগুলোতে ত্রাণ ও ওষুধ প্রদান করছে। আগস্টে রোহিঙ্গা সংকট শুরু হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশ সফরকারী কয়েকজন তুর্কি নীতিপ্রণেতা ও ঊর্ধ্বতন ব্যক্তির মাঝে ইলদিরিম অন্যতম।

তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু ও তুর্কি পরিবার ও সামাজিক নীতি মন্ত্রী ফাতমা বেতুল সায়ান কায়া ছাড়াও তুর্কি রাষ্ট্রপতির স্ত্রী এমিন এরদোগান বাংলাদেশ সফর করেন।

এরদোগানই প্রথম বিশ্বনেতা – যিনি মিয়ানমার থেকে অন্যায্য শক্তি প্রয়োগ করে রোহিঙ্গাদের বিতাড়িত করায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নিন্দা করেন এবং একে জাতিগত নিধনের ঘৃণ্য ঘটনা বলে আখ্যায়িত করেন।

ইসলামী সম্মেলন সংস্থার (ওআইসি) বর্তমান প্রধান এরদোগান সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর হামলা বন্ধে মিযানমারের উপর চাপ সৃষ্টির জন্যে বিশ্বব্যাপীি মুসলিম নেতাদের একত্রিত করেন। তিনি রোহিঙ্গা বিষয়টি জাতিসংঘেও উত্থাপন করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন: তুরস্ক রোহিঙ্গাদের দুর্দশার প্রতি আন্তর্জাতিক দৃষ্টি আকর্ষণের প্রাথমিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি বিশ্বব্যাপী সুন্নী মুসলমানদের বিরুদ্ধে নিপীড়ন রোধে তুরস্কের ব্যাপক প্রচেষ্টার অংশ। রোহিঙ্গা সংকটের ব্যাপারে তুরস্কের বিপুল সমর্থন এরদোগানের মুসলিম বিশ্বের নেতায় পরিণত হওয়ার প্রচেষ্টার অংশ।

রোহিঙ্গা সংকটে তুরস্কের ভূমিকা নিশ্চিতভাবে সে সুযোগ এনে দিয়েছে। যুদ্ধাপরাদের জন্যে বাংলাদেশের বৃহত্তম ইসলামী রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতাদের বিচারে ঘটনায় বাংলাদেশ ও তুরস্কের মাঝে সম্পর্কে টানাপড়েন দেখা দেয়। এরদোগান ২০১৬ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর ৭৩ বছর বয়স্ক দলীয় প্রধান মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদন্ড কার্যকর করার নিন্দা করেন। নিজামী মুসলমান বলে এ ঘটনাকে উপেক্ষা করার জন্যে তিনি তাদের অভিযুক্ত করেন। তখন তুরস্ক বাংলাদেশে নিযুক্ত তাদের রাষ্ট্রদূত ডেভরিম ওজতুর্ককে দেশে তলব করে। তিন মাস পর অবশ্য তিনি ঢাকা ফেরেন।

২০১৬ সালের ১৫ই জুলাই তুরস্কে ব্যর্থ অভ্যুত্থানের ঘটনায় এরদোগান সরকারের প্রতি সমর্থন জানানোর প্রেক্ষিতে গত বছর ওজতুর্ক বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

রোহিঙ্গা সমস্যা দু’দেশের মাঝে সম্পর্কের ক্ষত উপশম করেছে কিনা, এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ঢাকার তুর্কি দূতাবাসের কর্মকর্তারা সে বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান।

তবে পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক মন্ত্রণালয়ের একজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সময় যা ঘটেছিলো – বাংলাদেশ ও তুরস্ক তা ভুলে যেতে চায়। দু’দেশই তাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারের পরিকল্পনা করেছে।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস)-এর চেয়ারম্যান মুন্সি ফয়েজ আহমেদ বলেন, যুদ্ধাপরাধের বিচার এখন শেষ। তুরস্ক এ নিয়ে আর উদ্বিগ্ন নয় বা এটা গুরুত্বপূর্ণ মনে করে না। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি তুরস্কের জোর সমর্থন দু’দেশের মধ্যকার টানাপড়েনের সম্পর্ক উন্নয়নে নিশ্চিত ভাবে সাহায্য করেছে। আল-জাজিরা।

About superadmin

Check Also

পাকিস্তানের স্বার্থবিরোধী’ মার্কিন রেডিও বন্ধ করে দিলো ইসলামাবাদ

পাকিস্তানের স্বার্থবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত একটি রেডিও স্টেশন বন্ধ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *