Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / মার্কিন-ইহুদী অনধিকার চর্চা গ্রহণযোগ্য নয়: এরদোগান

মার্কিন-ইহুদী অনধিকার চর্চা গ্রহণযোগ্য নয়: এরদোগান

মুসলিম দেশগুলোকে একে অপরের বিরুদ্ধে টার্গেট করানো হচ্ছে

ইরান, পাকিস্তান তথা মুসলিম জাহানকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাঈল অনধিকার চর্চা করছে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তুর্কি রাষ্ট্রপতি রজব তাইয়্যেব এরদোগান। তিনি বলেন: মুসলিম রাষ্ট্র ইরাক, সিরিয়া, লিবিয়া, তিউনিসিয়া, সুদান ও শাদেও একই রকমের হস্তক্ষেপ দেখা গেছে। ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় সফর শুরুর আগে গত শুক্রবার ইস্তাম্বুলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এরদোগান বলেন, ইরান ও পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাচ্ছে তারা। বিভিন্ন দেশের জনগণকে পরস্পরের বিরুদ্ধে দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে। এসব আমাদের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু সাংবাদিকদের বলেছেন: ইসরাঈল ও আমেরিকার মদদেই ইরানে বিক্ষোভের ঘটনা ঘটছে। এ অস্থিরতার পেছনে দু’জন ব্যক্তি রয়েছেন। তাদের একজন ইসরাঈলী প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। অন্যজন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প। তুরস্ক সবসময়ই এ ধরনের বহিরাগত হস্তক্ষেপের বিরোধী।

পশ্চিমা ষড়যন্ত্রের মুখে থাকা প্রতিবেশী ইরান ও পাকিস্তানের পক্ষে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন তুর্কি রাষ্ট্রপতি রজব তাইয়্যেব এরদোগান। দেশ দু’টির সরকার ও স্থিতিশীলতার প্রতি তিনি সমর্থন জানান তিনি। ইরানের সাম্প্রতিক বিক্ষোভ ও বিচ্ছিন্ন কিছু সহিংসতার প্রতিক্রিয়ায় দেশটির রাষ্ট্রপতি হাসান রুহানীকে ফোন করে এরদোগান বলেছেন, স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা তার দেশের কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ইরানের নিরাপত্তাকে তুরস্ক নিজের নিরাপত্তা মনে করে।

সাম্প্রতিক বিক্ষোভ নিয়ে পশ্চিমা কিছু গণমাধ্যমের খবর এবং আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাঈলের কয়েকজন কর্মকর্তার মন্তব্য সম্পর্কে এরদোগান বলেন: পশ্চিমা অপপ্রচার এবং মার্কিন রাষ্ট্রপতি ও ইসরাঈলী প্রধানমন্ত্রীর অত্যুক্তি এবং হস্তক্ষেপমূলক বক্তব্য সম্পর্কে তার দেশ খুব ভালোভাবেই ধারণা রাখে।

টেলিফোনালাপে এরদোগান বলেন: ইরানের সঙ্গে ব্যাংকিংসহ সর্বাত্মক সম্পর্ক বাড়াতে তার দেশ আগ্রহী। এছাড়া, আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় তেহরান ও আংকারার মাঝে সহযোগিতার প্রশংসা করেন তিনি।

ফোনালাপে ইরানের রাষ্ট্রপতি ড. হাসান রুহানী বলেন: তার দেশের জনগণ আইনি কাঠামোর ভেতরে থেকে প্রতিবাদ করার ক্ষেত্রে স্বাধীন। দেশের মানুষের নিরাপত্তা তার সরকারের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তবে যে কোনো রকমের বেআইনি সহিংসতার মুখে সরকার চুপ করে বসে থাকবে না। ফোনালাপে রাষ্ট্রপতি রুহানী রাজনীতি, নিরাপত্তা ও অর্থনীতিসহ নানা ক্ষেত্রে তেহরান ও আংকারার মাঝে সহযোগিতার প্রশংসা করেন। আরটি, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ও পার্সটুডে।

About superadmin

Check Also

ইরাকের নির্বাচনে হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে সৌদি আরব: ইরাক

ইরাকের আসন্ন সংসদ নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করছে সৌদি আরব। আল-মায়াদিন টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *