Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারে রোহিঙ্গা ফেরত পাঠানো নিয়ে উদ্বিগ্ন বৃটিশ সাংসদরা

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা ফেরত পাঠানো নিয়ে উদ্বিগ্ন বৃটিশ সাংসদরা

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বৃটিশ সাংসদরা। কেননা, তারা মনে করেন, এখনো মিয়ানমার, যা বার্মা নামেও পরিচিত – দেশটিতে সেনাবাহিনীর ধর্ষণ আর যৌন সহিংসতা অব্যাহত থাকায় তাদের জন্যে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি হয়নি।

ব্রিটিশ কমন্স ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কমিটি বলছে, এটা পরিষ্কার যে, বার্মার (মিয়ানমার) সেনাবাহিনী ধর্ষণ আর যৌন সহিংসতাকে যুদ্ধের একটি অস্ত্রের মতো ব্যবহার করছে।

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বাংলাদেশ ‘দ্রুত পদক্ষেপ’ নিচ্ছে বলেও তারা মনে করে।

রাষ্ট্রহীন রোহিঙ্গারা দীর্ঘদিন ধরে মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। দেশটিতে সাম্প্রতিক সহিংসতা শুরু হওয়ার পর সাড়ে ৬ লাখের বেশি রোহিঙ্গা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। যাকে জাতিগত নির্মূল অভিযান বলে বর্ণনা করেছে জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্র।

যদিও মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দাবি, তারা শুধুমাত্র রোহিঙ্গা জঙ্গিদের বিরুদ্ধেই অভিযান চালাচ্ছে, সাধারণ মানুষজনের বিরুদ্ধে নয়।

সাম্প্রতিক একটি প্রতিবেদনে যুক্তরাজ্য সংসদের এ আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটি বলছে, সেখানে বিশাল মানবিক বিপর্যয়ের চিত্র বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বার্মার কর্মকাণ্ড লাখ লাখ মানুষের জন্যে মানবিক বিপর্যয় নিয়ে এসেছে, তেমনি বিশ্বকে ত্রাণ সহায়তা হিসাবে প্রতি বছর হাজার কোটি টাকার ব্যয় তৈরি করেছে। কিন্তু এ ঘটনার দীর্ঘমেয়াদি রাজনৈতিক প্রভাব রয়েছে। উগ্রপন্থী কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করতে ঐ এলাকা বারুদের একটি স্তূপ হয়ে আছে। যদিও বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের প্রথাগত নেতৃত্ব ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে; কিন্তু রোহিঙ্গা ফেরতের ব্যাপারে তাদের মতামতের অভাবের বিষয়টি আমাদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। বার্মায় বাস্তু চ্যুত রোহিঙ্গা বা অন্য সংখ্যালঘুদের ফেরতের ব্যাপারে অতীত অভিজ্ঞতা আস্থাজনক নয়।

যে ১ লাখ রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানোর কথা বলা হয়েছে, তারা কি স্বেচ্ছায় যাবে? তারা কোথায় যাবে? তাদের সুরক্ষার কী হবে? এসব বিষয় এখনো পরিষ্কার নয় বলে বৃটিশ সাংসদরা মনে করেন – যা তাদের সবচেয়ে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে।

রোহিঙ্গারা যাতে নিজেদের জীবনযাত্রা গড়ে তুলতে পারে আর স্বনির্ভর হয়ে উঠতে পারে, সেজন্যে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা দরকার বলে বৃটিশ এ কমিটি পরামর্শ দিয়েছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বৃটিশ চিকিৎসক

রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোয় শিশুদের মাঝে ডিপথেরিয়া ছড়িয়ে পড়ায় বৃটিশ চিকিৎসকদের একটি টিম এসেছে। এরই মাঝে টিমটি এসে ক্যাম্পগুলোয় কাজ শুরু করেছেন। বাংলাদেশ সরকারের রোহিঙ্গাদের মাঝে টিকা কর্মসূচীতে ২ মিলিয়ন পাউন্ড সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাজ্য। বিবিসি।

About superadmin

Check Also

নাইজেরিয়ার গ্রামে হত্যাযজ্ঞের প্রধান ৩ সন্দেহভাজন গ্রেফতার

নাইজেরিয়ার স্থানীয় পুলিশ সোমবার জানিয়েছে, তারা দেশটির উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় জমফারা রাজ্যের একটি গ্রামে হত্যাযজ্ঞ চালানোর অপরাধে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *