Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / পূর্ব জেরুজালেমই ফিলিস্তিনের রাজধানী হবে: পেন্সকে জর্দানের রাজা

পূর্ব জেরুজালেমই ফিলিস্তিনের রাজধানী হবে: পেন্সকে জর্দানের রাজা

জেরুজালেমকে ইসরাঈলের রাজধানী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃতির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে জর্দানের রাজা আব্দুল্লাহ বলেছেন, ফিলিস্তিন-ইসরাঈল সংকটের একমাত্র সমাধান হলো দ্বি-রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধান।

আম্মানে মার্কিন উপ-রাষ্ট্রপতি মাইক পেন্সের সঙ্গে এক বৈঠকে জর্দানের রাজা এ  মন্তব্য  করেছেন। পু্র্ব জেরুজালেমকে ভবিষ্যত ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী করতে হবে বলেও পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি। এর আগে মার্কিন রাষ্ট্রপতি মাইক পেন্সের জেরুজালেম সফরকে এর আগে প্রত্যাখ্যানের আহ্বান জানিয়েছিলো ফিলিস্তিনের মুক্তি আন্দোলনের সংগঠন হামাস। পেন্সের সঙ্গে তার বৈঠক বাতিল করেছেন ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আব্বাসও।

গত জুলাই মাসে আম্মানে ইসরাঈলী দূতাবাসের প্রহরীরা দু’ জর্দানী নাগরিককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় ইসরাঈল দুঃখ প্রকাশ করার পর, রাজা আব্দুল্লাহ এমন বিবৃতি দিলেন।

খবরে বলা হয়, ইসরায়েল আনুষ্ঠানিকভাবে ঐ হত্যাকাণ্ডের জন্য ক্ষমা চেয়েছে। তাছাড়া জর্দান সরকারের মাধ্যমে নিহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ বাবদ ৫০ লাখ ডলার দিয়েছে দেশটি। খুব দ্রুত সেখানে দূতাবাসের কার্যক্রম চালু করা হবে বলেও জানিয়েছে ইসরাঈল।

ইসরাঈল-ফিলিস্তিন সংকটের সবচেয়ে স্পর্শকাতর বিষয় হলো জেরুজালেম। ১৯৮০ সালে জেরুজালেমকে রাজধানী ঘোষণা করেছিলো ইসরাঈল। তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এর সমর্থন দেয়নি। আর ফিলিস্তিনীরা চায় অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেম যেনো তাদের রাজধানী হয়। এ কারণে সেখানে কোনও দেশ দূতাবাস স্থাপন করেনি।

গত ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরাঈলের রাজধানী স্বীকৃতি দেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প। খুব শিগগিরই মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়া হবে বলেও ঘোষণা দেন তিনি। তার এ সিদ্ধান্তে সারা বিশ্বে নিন্দার ঝড় ওঠে। ঘোষণার পরপরই জেরুজালেম, গাজা উপত্যকা, পশ্চিম তীরের রামাল্লা, হেবরন, বেথলেহেম, নাবলুস, কালকিলিয়া, তুলকার্ম ও জেনিনের রাস্তায় নেমে আসেন মুক্তিকামী ফিলিস্তিনীরা। বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলে পড়ে ইসরাঈলী বাহিনী। হতাহত হন বহু বিক্ষোভকারী। তারপরও দমে যাননি মুক্তিকামী মানুষেরা। প্রতিবাদ বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছেন তারা। এনিয়ে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ভোট হলে মার্কিন স্বীকৃতি প্রত্যাখ্যানের প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয় ১২৮টি দেশ। বিপরীতে ট্রাম্পের প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয় মাত্র ৯টি দেশ। ভোটদান থেকে বিরত ছিল ৩৫ দেশ। সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন।

About superadmin

Check Also

ট্রাম্প কর বাড়ানোয় কী বললেন এরদোগান-পুতিন?

তুরস্কের দু’ পণ্যে শুল্ক বাড়িয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এখন থেকে তুরস্কের আমদানি করা অ্যালুমিনিয়াম ও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *