Breaking News
Home / ধর্ম / বাবরি মসজিদ মামলায় ধর্ম ও রাজনীতি বাদ

বাবরি মসজিদ মামলায় ধর্ম ও রাজনীতি বাদ

বাবরি মসজিদ মামলার শুনানিতে জমিসংক্রান্ত বিরোধের প্রসঙ্গ ছাড়া ধর্ম ও রাজনীতি সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয় শুনবে না বলে জানিয়েছে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি অশোক ভান ও বিচারপতি এস আবদুল নাজিরকে নিয়ে গঠিত আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এ সময় সব নথির ইংরেজি অনুবাদ জমা দেয়ার কাজ সম্পূর্ণ না হওয়ায় ১৪ই মার্চ পর্যন্ত মামলার শুনানি স্থগিত করা হয়। এছাড়া দু’ সপ্তাহের ভেতরে নথিপত্রের ইংরেজি অনুবাদ জমা দেয়ার কাজ সম্পূর্ণ করে জমা দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিন আদালত স্পষ্ট জানিয়েছে, এ মামলায় রাজনীতি বা ধর্মসংক্রান্ত কোনো বক্তব্য শোনা হবে না। প্রতিদিন এ মামলার শুনানিতেও সম্মতি দেয়া হয়নি।

বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ এ মামলার শুনানি শুরু হলে, প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানায়, শুধুমাত্র একটি বিতর্কিত জমিসংক্রান্ত বিবাদ হিসাবেই মামলাটিকে দেখা হবে। এ মামলার সঙ্গে জড়িয়ে থাকা বহু বছরের পুরানো ইতিহাস ও স্মৃতি আদালতের কাছে তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়। ধর্ম বা রাজনীতির ভিত্তিতে কোনও বিষয় শোনা হবে না।

প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র বলেন: দেশের গরীব মানুষ বিচারের জন্য অপেক্ষা করছেন। এ মামলার কয়েক ঘণ্টা সময়ের মাঝে ৭০০টি অন্য মামলার নিষ্পত্তি করা সম্ভব।

জানা গেছে, বাবরি মসজিদ মামলার শুনানিকালে এক আইনজীবী বলেন: এর সঙ্গে কোটি কোটি হিন্দুর ভাবাবেগ জড়িত। তখন আদালত সাফ জানান, এ ধরনের কোনো বিষয় নিয়ে ভাবা হচ্ছে না। আবেদন, পালটা আবেদন সবই আছে। কিন্তু এ মামলা শুধুমাত্র বিতর্কিত ভূমি-বিবাদ হিসেবেই দেখা হবে।

মুসলমানদের পক্ষে এ মামলা লড়ছেন আইনজীবী রাজীব ধাওয়ান। তার দাবি ছিল, প্রতিদিন এ মামলার শুনানি চলুক।

জবাবে আদালত জানায়, মামলার গুরুত্ব আদালত জানে। কিন্তু এ দেশের বহু গরীব মানুষ বিচার প্রার্থনা করছেন। সুতরাং এ মামলায় প্রতিদিন সময় দিয়ে তাদের ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত করতে চান না আদালত। সূত্র: যুগান্তর।

About superadmin

Check Also

বিশ্বের কোনো শক্তিই রাম মন্দির নির্মাণে বাধা দিতে পারবে না: বিনয় কাটিয়ার

ভারতে হিন্দুত্ববাদী বিজেপি’র রাজ্যসভার সদস্য বিনয় কাটিয়ার বলেছেন: রাম মন্দির নির্মাণে বিশ্বের কোনো শক্তিই বাধা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *