Home / আন্তর্জাতিক / কথিত রাসায়নিক হামলার প্রমাণ নষ্ট করার অভিযোগ রাশিয়ার প্রত্যাখ্যান

কথিত রাসায়নিক হামলার প্রমাণ নষ্ট করার অভিযোগ রাশিয়ার প্রত্যাখ্যান

সিরিয়ার দুমা শহরে কথিত রাসায়নিক হামলার প্রমাণ নষ্ট করার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে রাশিয়া। গত সপ্তাহে ঐ শহরে সিরিয়ার সেনাবাহিনী রাসায়নিক হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ তুলে মার্কিন নেতৃত্বাধীন তিন পশ্চিমা দেশ ১৪ই এপ্রিল সিরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে।

বিবিসি’র হার্ডটক অনুষ্ঠানে দেয়া সাক্ষাৎকারে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন: আমি গ্যারান্টিসহ দৃঢ়তার সঙ্গে একথা বলছি যে, রাশিয়া (দুমার রাসায়নিক হামলার স্থানে) প্রমাণ নষ্ট করার জন্য কোনো তৎপরতা চালায়নি।

এর আগে রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা ওপিসিডাব্লিউ’তে নিযুক্ত মার্কিন প্রতিনিধি কেনেথ ওয়ার্ড সোমবার বলেছিলেন: আমরা ধারণা করছি, রাশিয়ার সেনাবাহিনী ঐ এলাকায় প্রবেশ করে রাসায়নিক হামলার প্রমাণ নষ্ট করে ফেলেছে।

ওপিসিডাব্লিউ’র ১৭ সদস্যের একটি শক্তিশালী প্রতিনিধিদল বর্তমানে সিরিয়ায় অবস্থান করছে এবং এ দলের সদস্যরা আগামীকাল (বুধবার) দুমা শহরে কথিত রাসায়নিক হামলার স্থান পরিদর্শন করবেন।

গত সপ্তাহে যখন সেখানে রাসায়নিক হামলার অভিযোগ তোলা হয়, তখন দুমা শহর উগ্র সন্ত্রাসীদের নিয়ন্ত্রণে ছিলো। বর্তমানে শহরটি সিরিয়ার সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রণ করছে। ওপিসিডাব্লিউ’র পক্ষ থেকে রাসায়নিক হামলা হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে নিশ্চয়তা দেয়ার আগেই ১৪ই এপ্রিল আমেরিকা, বৃটেন ও ফ্রান্স সিরিয়ার বিভিন্ন অবস্থানে অন্তত ১০০টি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ল্যাভরভ বিবিসি’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে দুমায় রাসায়নিক হামলা চালানোর অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন: পশ্চিমা দেশগুলো যে বক্তব্য দিচ্ছে, তার প্রতি আমি অসম্মান জানাবো না। তবে আমেরিকা, ফ্রান্স ও বৃটেনের রাষ্ট্রপ্রধানদের বক্তব্য সম্পর্কে আমি খোলাখুলিভাবে একথাই বলবো যে, তারা যে সব প্রমাণের কথা বলেছেন, তার সবই গণমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত তথ্যনির্ভর। দুমায় কোনো রাসায়নিক হামলা হয়নি। সেখানে রাসায়নিক হামলার অভিনয় করা হয়েছে মাত্র।

ওপিসিডাব্লিউ’র পরিদর্শকরা কথিত হামলার স্থান পরিদর্শনের আগেই আমেরিকা, ফ্রান্স ও বৃটেন কেন সিরিয়ায় হামলা চালালো – সে প্রশ্নও তোলেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন: যোগাযোগ ও সমন্বয়ের অভাবের কারণে পাশ্চাত্য ও রাশিয়া বর্তমানে শীতল যুদ্ধের চেয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে রয়েছে। বিবিসি।

About superadmin

Check Also

পাকিস্তান তুরস্ক থেকে ৩০ অ্যাটাক হেলিকপ্টার কিনছে

তুরস্কের কাছ থেকে ৩০টি অ্যাটাক হেলিকপ্টার ক্রয়ের চুক্তি করেছে পাকিস্তান। টি-১২৯ মডেলের মাল্টি-রোল হেলিকপ্টার সব ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *