Home / আন্তর্জাতিক / অবশেষে ফিলিস্তিনীদের জন্যে সিসির দয়া: রমজানে সীমান্ত খোলা রাখার নির্দেশ

অবশেষে ফিলিস্তিনীদের জন্যে সিসির দয়া: রমজানে সীমান্ত খোলা রাখার নির্দেশ

গত ১১ বছর ধরে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকা দখল করে রেখেছে ইসরাঈল। গাজা উপত্যকা সংলগ্ন মিসরের রাফাহ সীমান্ত বন্ধ থাকায় ফিলিস্তিনীরা চিকিৎসাসেবাসহ জরুরি প্রয়োজন মেটাতে বাইরে যেতে পারতেন না।

অবশেষে রমজান মাস উপলক্ষে রাফাহ সীমান্ত খুলে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি। পুরো রমজানজুড়ে এ সীমান্ত খোলা থাকবে।

রাফাহ সীমান্ত বেশিরভাগ সময়ই বন্ধ থাকে। প্রতি ২-৩ মাস পর হয়তো কয়েক দিনের জন্য খুলে দেয় মিসর। বিগত কয়েক বছরে এবারই সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে খুলে দেয়ার ঘোষণা দিলো মিসর।

বৃহস্পতিবার এক টুইটবার্তায় সিসি বলেন: আমি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছি যেন পবিত্র রমজানজুড়ে এ সীমান্ত খোলা থাকে।

গাজা উপত্যকার নিয়ন্ত্রণ হামাসের কাছে থাকলেও এর সীমান্ত তাদের দখলে নেই। রাফাহ সীমান্ত মিসরের দখলে এবং এরেজ সীমান্ত ইসরাঈলের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

কায়রোতে এক চুক্তি অনুযায়ী, এ সীমান্ত ফিলিস্তিনী কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দিয়েছিলো মিসর।

২০১৩ সালে সিনাই উপদ্বীপ অঞ্জলে মিসরীয় বাহিনীর ওপর হামলার পরই এ সীমান্ত বন্ধ করে দেয় মিসর। তাদের অভিযোগ – ফিলিস্তিনীরা এ হামলা চালিয়েছেন। সীমান্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্য ও মৌলিক সেবা থেকে বঞ্চিত ছিলো বহু ফিলিস্তিনী।

২০০৭ সাল থেকে গাজা উপত্যকার আকাশ, স্থল ও জলপথ বন্ধ করে দেয় ইসরাঈল। গাজার মোট ৭টি সীমান্ত রয়েছে – যার  ৬টিই ইসরাঈলের নিয়ন্ত্রণে। একটি মাত্র সীমান্ত রাফাহ মিসরের নিয়ন্ত্রণে। ২০১৩ সালে মোহাম্মদ মুরসির উৎখাতের পর এ সীমান্তও বেশিরভাগ সময় বন্ধ থাকে।

২০০৭ সালে গাজার ওপর সর্বাত্মক অবরোধ চাপিয়ে দেয় ইসরাঈল। তখন থেকে গাজাবাসী বাইরের জগতের সঙ্গে প্রায় সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন। গাজা থেকে যেসব মানুষ চিকিৎসাসহ জরুরি প্রয়োজন মেটাতে বাইরে যেতে চান, দীর্ঘদিন ধরে রাফাহ সীমান্ত বন্ধ থাকায় তাদের পক্ষে তা সম্ভব হচ্ছিলো না। আবার বাইরে থেকে যেসব নাগরিক গাজায় ফিরতে চান, তারাও যেতে পারছিলেন না।

উল্লেখ্য, সোমবার গাজা উপত্যকায় ভূমি দিবস উপলক্ষে আন্দোলনরত অর্ধশতাধিক ফিলিস্তিনীদের হত্যা করেছে দখলদার ইসরাঈল বাহিনী। রয়টার্স ও যুগান্তর।

About superadmin

Check Also

পরমাণু কেন্দ্র ধ্বংসের দাবি উঃ কোরিয়ার

সদিচ্ছার প্রমাণ হিসেবে পরমাণু পরীক্ষা কেন্দ্র ‘পুংগিয়ে-রি’ পুরোপুরি ধ্বংসের দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। ঘোষিত পরিকল্পনা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *