Breaking News
Home / খেলাধূলা / আর্জেন্টিনাকে কাঁদিয়ে ফ্রান্স কোয়ার্টার ফাইনালে

আর্জেন্টিনাকে কাঁদিয়ে ফ্রান্স কোয়ার্টার ফাইনালে

ফ্রান্স ৪: আর্জেন্টিনা ৩

বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে তথা বিদায় করে এবারের আসরে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেলো ফ্রান্স। ১৯৭১ সালের ৮ই জানুয়ারী আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে লা বোম্বোনেরা স্টেডিয়ামে একটি প্রীতি ম্যাচেও ফ্রান্স একই ব্যবধানে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে ছিলো। এ পরাজয়ের ফলে, মেসির স্বপ্নভঙ্গ হলো – যে স্বপ্ন নিয়ে অবসর ভেঙ্গে সে পুনরায় দলে ফিরেছিলো। সেই সঙ্গে ১৯৯০ সাল থেকে আর্জেন্টিনার যেসব ভক্ত ও সমর্থক দলের চ্যাম্পিয়নশীপের প্রত্যাশায় দিন গুণছিলো, তাদের প্রত্যাশা আরও ৪ বছর প্রলম্বিত হলো।

উত্তেজনাপূর্ণ এ ম্যাচের ৯ মিনিটে ফরাসী মিডফিল্ডার গ্রিজম্যানের শট সাইড বারে লেগে প্রতিহত হয়। ১৩ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গ্রিজম্যান গোল করে দলকে এগিয়ে নেয় (১-০)। কিন্তু ৪১ মিনিটে আর্জেন্টাইন উইংগ্রার ডি মারিয়া ৩০ গজ দূর থেকে দূরপাল্লার অসাধারণ শটে গোল করে সমতা আনে (১-১)। এটিই এ আসরের এ পর্যন্ত সবচেয়ে দূরপাল্লার শটে গোল! ৪৮ মিনিটে মেসির একটি টেকনিক্যাল শট আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার মার্কাডোর পায়ে লেগে ফরাসীদের জালে জড়ালে, আর্জেন্টিনা এগিয়ে যায় (২-১)। তবে ৫৭ মিনিটে ফরাসী ডিফেন্ডার পাভার্দ দর্শনীয় শটে গোল করে দলকে খেলায় ফেরায় (২-২)। ৬৮ মিনিটে ফরাসী ফরোয়ার্ড এমবাপে টেকনিক্যাল শট করে দলকে আবার এগিয়ে নেয় (৩-২)। ৬৮ মিনিটে সে-ই জয়সূচক গোল করে ব্যবধান বাড়ায় (৪-২)। অতিরিক্ত সময়ে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার আগুয়েরো গোল করে ব্যবধান কমালে, আর্জেন্টিনার শিবিরে একটু আশার আলো জেগে ওঠে (৪-৩)। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। এমবাপে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হয়। স্টাফ রিপোর্টার।

About superadmin

Check Also

বেলজিয়াম তৃতীয়

বেলজিয়াম ২: ইংল্যান্ড ০ থ্রি লায়ন্সদের হারিয়ে রেড ডেভিলসরা এবারের আসরে ৩য় হলো। এটিই এ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *