Breaking News
Home / জাতীয় / আলোকচিত্রী ডঃ শহিদুল আলম ৭ দিনের রিমান্ডে এবং নির্যাতনের অভিযোগ

আলোকচিত্রী ডঃ শহিদুল আলম ৭ দিনের রিমান্ডে এবং নির্যাতনের অভিযোগ

তথ্য প্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় দৃক গ্যালারির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলমের জামিন নামঞ্জুর করে ৭ দিনের রিমান্ড দিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।

গতকাল (সোমবার) তাকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন রমনা থানায় দায়ের করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) আরমান আলী। আদালতে রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন শহিদুলের আইনজীবী ব্যারিস্টার সারা হোসেন ও জোতির্ময় বড়ুয়া।

জ্যোতির্ময় বড়ুয়া শুনানিতে শহিদুল আলমকে ডিবি অফিসে নির্যাতনের অভিযোগ করেন। তিনি বলেন: তাকে ডিবি অফিসে পেটানো হয়েছে। এক সময় রক্তে তার পাঞ্জাবী ভিজে গেলে, তা ধুয়ে দেয়া হয়েছে। পরে সেই পাঞ্জাবী পরিয়েই তাকে আদালতে আনা হয়েছে। এখনও পাঞ্জাবী ভিজে আছে।

অনুমতি নিয়ে শহিদুল আলম আদালতকে বলেন: এক ছাত্রীর পরিচয় দিলে আমি দরজা খুলে দিই। এ সময় আড়ালে থাকা ১০/১২ জন আমার বাসায় প্রবেশ করে জোর করে ধরে নিয়ে যায়। তারা আমাকে মাইক্রোবাসে তোলার পর, হাতকড়া পরায় এবং চোখ বেঁধে ফেলে; অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। এরপর একটি অজানা স্থানে নিয়ে তাকে মারধর করা হয়। রক্তে তার পাঞ্জাবী ভিজে যায়।

শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম (এসিএমএম) আসাদুজ্জামান নূর জামিন নামঞ্জুর করে ৭ দিনের রিমান্ডে পাঠান। এর আগে তাকে রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্ম কমিশনার (গোয়েন্দা বিভাগ) আবদুল বাতেন জানিয়েছেন।

রোববার রাতে ধানমণ্ডির বাসা থেকে শহীদুলকে অপহরণ করা হয় বলে অভিযোগ করেন তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ। তিনি জানান, চলমান ছাত্র বিক্ষোভ নিয়ে শহীদুল সম্প্রতি একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে (আল-জাজিরা) সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন।

দৃকের জেনারেল ম্যানেজার এএসএম রেজাউর রহমান বলেন: রোববার রাতে তার নিজ বাসা থেকে একদল দুর্বৃত্ত তাকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। রাতে তিনি ধানমণ্ডি মডেল থানায় অপহরণের মামলা করতে গেলে, পুলিশ মামলা না নিয়ে অভিযোগ হিসেবে গ্রহণ করেছে। সূত্র: পার্সটুডে।

About superadmin

Check Also

গ্রেফতার শিক্ষার্থীদের মুক্তি দাবি সুজনের

কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী ও আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশকারী শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করার ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *